কালীঘাট ও অধিকারী গড়ের দূরত্ব প্রকট?

Webdesk:মমতার সঙ্গে শুভেন্দু দূরত্ব ক্রমশ প্রকট। পূর্ব মেদিনীপুরের সম্রাটের হাত থেকে কেড়ে নেওয়া হলো রাজ্য কর্মচারী ফেডারেশনের দায়িত্ব।

কালীঘাটের সঙ্গে তবে কি ক্রমশ দূরত্ব বাড়ছে শুভেন্দু অধিকারী ?
রাজ্য কর্মচারী ফেডারেশনের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হল মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীকে। তাঁর জায়গায় এককভাবে সেই দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে দিব্যেন্দু রায়কে। শীর্ষ নেতৃত্বের এই সিদ্ধান্তে যথেষ্ট ক্ষুব্ধ শুভেন্দুর অনুগামীরা। ইতিমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে শুরু হয়েছে লেখালেখি। ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন শুভেন্দু অনুগামীরা।
সূত্রের খবর, কিছুদিন ধরেই তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে শুভেন্দু অধিকারীর মন ও দর কষাকষি চলছে। সাম্প্রতিক সময়ে দলীয় কর্মসূচিতে তেমন একটা দেখা মেলেনি শুভেন্দুর। এমনকী, কিছুদিন আগে জেলার যুব তৃণমূল সভাপতির পদ থেকে শুভেন্দুর অনুগামী বলে পরিচিত ময়নার বিধায়ক সংগ্রাম কুমার দলুইকে সরিয়ে দেওয়া হয় পদ থেকে। বদলে পার্থ মাইতিকে বসানো হয় ওই পদে। সূত্রের খবর, ঘনিষ্ঠ মহলে এই নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন শুভেন্দু। সাম্প্রতিক সময়ে দূরত্ব যে তৈরি হয়েছে তা বেশ পরিস্কার হয়ে উঠছিল। পূর্ব মেদিনীপুর জুড়ে শুভেন্দু অনুগামীরা দলীয় প্রতীক ব্যবহার না করে শুভেন্দুর নাম কে সামনে রেখে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করছিল। এমনকি শুভেন্দু অধিকারীর অনুগামীরা টি-শার্টে শুভেন্দু অধিকারীর ছবি লাগিয়ে বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেছিলেন। সেখানে ছিল না কোনো দলীয় প্রতীক। কোর কমিটির প্রথম বৈঠকেও উপস্থিত ছিলেন না শুভেন্দু অধিকারী।
এবার রাজ্য কর্মচারী ফেডারেশনের মেন্টর পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হল তাঁকে।
জানা গিয়েছে, গত সোমবার তৃণমূল ভবনের বৈঠকে সুব্রত বক্সি ও পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের উপস্থিতিতে কমিটি ভেঙে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এই কমিটিতে চিফ মেন্টর পদে ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী।
দলীয় সূত্রের খবর, বেশ কিছুদিন ধরেই কর্মচারী ফেডারেশনের বৈঠকে থাকছিলেন না শুভেন্দু। যা নিয়ে ফেডারেশনের সদস্যদের মধ্যে ক্ষোভ তৈরি হচ্ছিল। সে কারণেই তাঁকে সরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কিন্তু রাজনৈতিক মহলে ইতিমধ্যেই গুঞ্জন শুরু হয়ে গিয়েছে।


Comment As:

Comment (0)