অধীরের ওপরই আস্থা হাইকমান্ডের

মমতার সুবিধা করলেন সোনিয়া

২০১৪ লোকসভা নির্বাচন।  কংগ্রেসের হাত ততদিনে আবার ছাড়িয়ে নিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ইউপিএ-২ থেকে প্রত্যাহার করেছে সমর্থন।  চমকপ্রদ ভাবেই একুশের নির্বাচনের আগে আগে প্রদেশ কংগ্রেসের নতুন সভাপতি করা হল অধীর চৌধুরীকে। বর্তমান সময়ে মাঠে ময়দানে থেকে যে সমস্ত রাজনীতি ব্যক্তিত্ব রাজনীতি করেন অধীর চৌধুরী তাদের মধ্যে একজন,এটা স্বীকার করতে রাজনৈতিক কর্মী হতে হয় না। খালি চোখেও বোঝা যায়।  পরবর্তীতে ২০১৬ সালে প্রথম রাজ্য রাজনীতি দেখল বাম ও কংগ্রেস একজোট হয়ে নির্বাচনে নামলো।  প্রত্যাশা পুরনে ব্যর্থতা হলেও, বামেদের টপকে বিরোধী দল হয়ে গেল কংগ্রেস।  পরবর্তী ২০১৯ সালে সোমেন মিত্র প্রদেশ সভাপতি থাকার সময় একাধিক চেষ্টা হলেও আদতে লোকসভা নির্বাচনে জোট হয় নি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কড়া চ্যালেঞ্জের সামনে দাঁড় করিয়েছে বিজেপি ওই নির্বাচনে।  
০৯/০৯/২০ ফের একবার প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির দায়িত্বে অধীর চৌধুরী। 

 এতগুলো কথা বলার কারণ,রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন ২০২১ এ। সেখানে দাড়িয়ে লোকসভার নেতাকে হঠাৎ রাজ্যের দায়িত্বে কেন? খালি চোখে কারণ একটাই ঝিমিয়ে পড়া কংগ্রেস কর্মীদের চাঙ্গা করা। উত্তরবঙ্গে এখনও কংগ্রেসের একটা ভোট আছে, আছে বামেদেরও। ২০১৯ এর নির্বাচনে যা একত্রিত না হওয়ায় লাভ পেয়েছে বিজেপি। সিপিএম বরাবরই প্রধান শক্র নির্ধারণে সঠিক অবস্থান নিতে পারে না। আমি সিপিএমের এক পলিটব্যুরো সদস্যকে জিগেস করেছিলাম,এই মুহুর্তে আপনাদের প্রধান শক্র কে? তিনি বলেছিলেন, বিজেপি। অর্থাৎ এটা ধরে নেওয়া যেতেই পারে বিজেপিকে উৎখাত করা বা ক্ষমতা কমানোই এই মুহুর্তে সিপিএমের প্রধান লক্ষ।  তৃনমুল কংগ্রেস নয়। এই সুত্র ধরে এগালে মোদ্দা বিষয় আরও স্পষ্ট হয়ে যাচ্ছে, অধীর চৌধুরী প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি মানে রাজ্যের কংগ্রেস কর্মীরা চাঙ্গা হবেই,সেইসঙ্গে যে ভোট ২০১৯ এ কংগ্রেস পায় নি তাও ফিরে আসবে,বামেদের নিজস্ব ভোট তো রয়েছে,  নিচুতলার ঐক্যের মধ্যে দিয়ে জোট হলে যে বাম ভোট বিজেপিতে গিয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে, তার কিছুটা ফিরেও আসবে।আর এইসব হলে আদতে তৃনমুল কংগ্রেসের সুবিধাই তো হতে চলেছে।  ২০২১ এ বাম-কংগ্রেস যদি ৭০-৮০ টা আসন পায়, তাহলেই ২০১৯ লোকসভার নিরিখে ক্ষতি হবে বিজেপির। এবং পরিস্থিতি যদি এমন হয় তৃনমুল ও বিজেপি আসন সংখ্যায় উনিশ-বিশের তফাৎ,  বাম-কংগ্রেস KEY ফ্যাক্টর, সেক্ষেত্রে বিজেপিকে আটকাতে তৃনমুলকে কী সমর্থন করা থেকে পিছপা হবে সূর্য মিশ্র, অধীর চৌধুরীরা?

লেখক: সুমন চক্রবর্ত্তী


Comment As:

Comment (0)